রংপুর বিভাগের জ্বালানী তেল পরিবেশকগণের সাথে বিএসটিআই এর মতবিনিময় ও গণশুনানি অনুষ্ঠিত


প্রকাশের সময় : জুন ৭, ২০২৩, ৪:২২ অপরাহ্ণ / ৬৪
রংপুর বিভাগের জ্বালানী তেল পরিবেশকগণের সাথে বিএসটিআই এর মতবিনিময় ও গণশুনানি অনুষ্ঠিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: বিএসটিআই বিভাগীয় অফিস, রংপুরের সভাকক্ষে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সেবা গ্রহীতার গণশুনানী, অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনা, তথ্য অধিকার আইন এবং সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি বিষয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জনাব মফিজ উদ্দিন আহ্মাদ, উপপরিচালক (মেট্রোলজি) ও বিভাগীয় অফিস প্রধান, বিএসটিআই, রংপুর। সভায় উপস্থিত ছিলেন রংপুর বিভাগের প্রতিনিধিত্বকারী ২০ জন জ্বালানী তেল পরিবেশক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ। প্রথমে উপস্থিত সকলকে বিএসটিআই,রংপুর এর প্রস্তুতকৃত বিভিন্ন সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়। অতঃপর পেট্রোল,ডিজেল.অকটেন ও লুবওয়েল এর উপর সম্যক আলোকপাত করেন জনাব মোঃ দেলোয়ার হোসেন, ফিল্ড অফিসার (সিএম), জ্বালানী তেল এর গুণগতমানের পরীক্ষণ ব্যবস্থা এবং প্রয়োজনীয় সতর্কতা বিষয়ে আলোচনা করেন জনাব মোঃ মাহবুবুর রহমান সরকার, সহকারী পরিচালক (রসায়ন)। জনাব মফিজ উদ্দিন আহমাদ, উপপরিচালক (মেট) ও অফিস প্রধান এর সঞ্চলনায় সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্ত অংশীজনের অংশগ্রহণে গণশুনানী এবং অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনা বিষয়ে স্টেকহোল্ডারগণের সভা অনুষ্ঠিত হয়। নীলফামারী জ্বালানী তেল পরিবেশক সমিতির সভাপতি মোঃ একরামুল হক বলেন আমরা সঠিকভাবে ব্যবস্থা করতে চাই এ ব্যপারে বিএসটিআই থেকে সঠিক নির্দেশনা এবং সহযোগিতা চাই। দিনাজপুর জ্বালানী তেল পরিবেশক সমিতির সহসাধারণ সম্পাদক রজব আলী সরকার বলেন কেউ ফেরেশতা না তাই সকল মালিকদের উচিত উপস্থিত থেকে তেল বুঝে নেয়া। কাউকে অন্ধবিশ্বাস করা উচিত না। নীলফামারী জ্বালানী তেল পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বলেন, ফিলিং স্টেশন বাদে যত্রতত্র খোলা জ্বালানী তেল বন্ধ করলে গুনগত মান সম্পন্ন জ্বালানী তেল পাওয়া যাবে। অতঃপর ৪র্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় করণীয় বিষয়ে অবহিতকরণ, সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি বিষয়ে স্টেকহোল্ডারগণের সমন্বয়ে অবহিতকরণ এবং তথ্য অধিকার আইন ও বিধিবিধান সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিকরণ বিষয়ে আলোচনা করেন প্রকৌঃ মোঃ জাহিদুর রহমান, সহকারী পরিচালক (সিএম)।
পরিশেষে সভাপতি রংপুর বিভাগের জ্বালানী তেল পরিবেশকগণের এ সভায় যোগদান করার জন্য ধন্যবাদ জানান। সভাপতি জানান যে, ভোক্তা সাধারণকে সঠিক পরিমাপের নিশ্চয়তার জন্য ফিলিং স্টেশননের সাথে সাথে জ্বালানী তেলের ডিপোতে অভিযান অব্যহত রাখতে হবে এবং পরবর্তী মিটিং এ জ্বালানী তেল বিপননকারী প্রতিনিধিদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হবে। এ বিষয়ে উপস্থিত সবাই একমত পোষন করেন। ২০৪১ এ উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকারে সকল উন্নয়ন মূলক কাজে কাধে কাধ রেখে এগিয়ে যেতে হবে। ভোক্তার স্বার্থ রক্ষার্থে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে। তিনি সিটিজেন চার্টার অনুযায়ী উল্লেখিত সময়সীমার মধ্যে লাইসেন্স / সনদপত্র প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করার আহবান জানান। বিএসটিআইতে আগত সেবাগ্রহীদের প্রতি অন্যায়, বৈষম্যমূলক বা হয়রানিমূলক আচরণ করা যাবে না মর্মে নির্দেশনা প্রদান করেন। স্টেকহোল্ডারদের উন্নয়নের জন্য পরামর্শের প্রয়োজন হলে যোগযোগ করার অনুরোধ জানান।