জাতীয় সংসদ নির্বাচন: গাইবান্ধায় ৫২ প্রার্থীর মধ্যে ৬জন নারী


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২, ২০২৩, ৩:২০ অপরাহ্ণ / ১৮১
জাতীয় সংসদ নির্বাচন: গাইবান্ধায় ৫২ প্রার্থীর মধ্যে ৬জন নারী


প্রতিনিধি গাইবান্ধা
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধার পাঁচটি আসনে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন ৫২জন প্রার্থী। এরমধ্যে তিনটিতে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্রসহ নারীসহ মোট নারী প্রার্থী ৬জন। বাকি দুটি আসনে নৌকা মনোনয়ন পেয়েছে পুরুষ প্রার্থী।
পুরুষ প্রার্থী হিসেবে গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) আসনে সাবেক এমপি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ ও গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান এমপি মাহমুদ হাসান রিপনকে দলীয় মনোনীত প্রার্থী হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে।
অপরদিকে মনোনয়ন পাওয়া তিন নারী প্রার্থী হলেন- গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফরুজা বারি, গাইবান্ধা-২ (গাইবান্ধা সদর) আসনে বর্তমান এমপি ও হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি, গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনে কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ স¤পাদক ও বর্তমান এমপি উম্মে কুলসুম স্মৃতি।
এর আগে ২৬ নভেম্বর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেন দলের সাধারণ স¤পাদক ওবায়দুল কাদের। এ ঘোষণার মধ্য দিয়ে দলের প্রার্থী-সমর্থকসহ এলাকার সাধারণ মানুষের সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটেছে। দলীয় মনোনয়ন ঘোষণা হওয়ায় প্রত্যেকটি আসনে আনন্দ মিছিল-মিষ্টি বিতরণ করেছে প্রার্থীর কর্মী সমর্থকরা।
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধার ৫টি আসনে বৃহস্পতিবার আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি, জাসদ, বিকল্প ধারা, বিএনএম, এনপিপি, স্বতন্ত্রসহ বিভিন্ন দলের ৫২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা জেলা নির্বাচন রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক এবং সহকারি রির্টার্নিং অফিসার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে এসব মনোনয়নপত্র পৃথক পৃথকভাবে দাখিল করেন। গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে ১৬, গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনে ১০ জন, গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ি) আসনে ১২ জন, গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) আসনে ৭ জন ও গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনে ৭ জন। এরমধ্যে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে আফরোজা বারী (আ’লীগ), শামীম হায়দার পাটোয়ারী (জাপা), মো. শরিফুল ইসলাম (গণফ্রন্ট), মো. আবু বক্কর সিদ্দিক (কৃষক-শ্রমিক-জনতালীগ), গোলাম আহসান হাবীব মাসুদ (জাসদ), খন্দকার রবিউল ইসলাম (বাংলাদেশ সংস্কৃতি মুক্তিজোট), মো. ওমর ফারুক সিজার (বিএনএফ), মো. মোশারফ হোসেন (জাকের পাটি), মোছা: আইরিন আকক্তার (বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি), মো. হাফিজার রহমান সরদার (খেলাফত আন্দোলন), মো. ফখরুল হাসান (কংগ্রেস পাটি), মোস্তফা মহসিন সরদার (স্বতন্ত্র), এবিএম মিজানুর রহমান (স্বতন্ত্র), আব্দুল্লাহ নাহিদ নিগার (স্বতন্ত্র), জয়নাল আবেদীন (স্বতন্ত্র)।
গাইবান্ধা-২ আব্দুর রশিদ সরকার (জাপা), গোলাম মারুফ মনা (জাসদ), শাহ সারোয়ার কবীর (স্বতন্ত্র)।
গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ি) মাইনুর রাব্বী রুমান (জাপা), খাদেমুল ইসলাম খুদি (জাসদ), মো. মঞ্জুরুল হক (বিএনএম), বিগ্রেডিয়ার মাহমুদুল হক (কল্যাণ পার্টি), আজিজার রহমান বিএসসি (স্বতন্ত্র), সাহরিয়া খান বিপ্লব (স্বতন্ত্র), অবসরপ্রাপ্ত মেজর মফিজুল হক সরকার (স্বতন্ত্র), আবু জাহিদ নিউ (স্বতন্ত্র)।
গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) কাজী মশিউর রহমান (জাপা), ডা: রুমি আকরাম (এনপিপি), প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী (স্বতন্ত্র)।
গাইবান্ধা-৫ (ফুলছড়ি-সাঘাটা) আসনে আতাউর রহমান সরকার আতা (জাপা), অ্যাড. জাহাঙ্গীর আলম (বিকল্প ধারা), ফারুক মিয়া (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি), ফারজানা রাব্বী বুবলী (স্বতন্ত্র) শামসুল আজাদ শীতল (স্বতন্ত্র) এইচ এম এরশাদ (স্বতন্ত্র)।
উল্লেখ্য, গাইবান্ধা জেলার ৫ টি আসনে অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ৪টি পৌরসভাসহ ৭টি উপজেলার ৮১টি ইউনিয়নে ৬শ’ ৪৬টি ভোট কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। এই ৫টি আসনে ২০ লাখ ৫২ হাজার ৬শ’ ৯৮টি ভোটার রয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ লাখ ১১ হাজার ৫শ’ ৬৮ জন এবং ১০ লাখ ৪১ হাজার ১শ’ ৯ জন মহিলা ভোটার রয়েছে।